মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভাষা ও সংস্কৃতি

দুপচাঁচিয়া উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগলিক অবস্থানগত দিক থেকে ঐতিহ্যবাহী ও প্রাচীনতম বাণিজ্যিক অঞ্চল হিসাবে খ্যাত সাড়া জাগানো তালোড়া ইউনিয়নের ভাষা ও সংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে। দুপচাঁচিয়া উপজেলা পরিষদ হতে প্রায় ৭.০০০ কিলোমিটার পাকা রাস্তা দিয়ে দক্ষিনে ৬ নং তালোড়া ইউনিয়ন অবস্থিত। অতি প্রাচীনকাল থেকেই এখানে ব্যবসায়িক কেন্দ্র হিসাবে দেশ-বিদেশের বহু ভাষাভাষী মানুষের বিভিন্ন রকমের ব্যবসা করার নিমিত্তে আগমন ঘটে। এছাড়াও এখানে তৎকালীন বৃটিশ শাসন আমল থেকেই ব্যবসা-বাণিজ্যের ব্যাপক প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম হিসাবে বৃটিশদের দ্বারা রেলপথ নির্মিত হয়েছে। সে কারণে এখানে অনেক রকমের লোকের সমাগম হয়েছে। সুতরাং এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য জেলা ও উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন কথ্য ভাষায় মহাপ্রাণ ধ্বনি অনেকাংশে অনুপস্থিত, অর্থাৎ ভাষা সহজীকরণের প্রবণতা রয়েছে। আঞ্চলিক ভাষার সাথে সন্নিহিত বগুড়া, নওগাঁ জেলার ভাষার অনেকটা সামঞ্জস্য রয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে এই ইউনিয়নের প্রায় বেশীর ভাগ লোক বাংলা সাধু ও চলিত ভাষায়ও কথা বলতে চেষ্টা করেন। নাগর নদীর গতি প্রকৃতি এ ইউনিয়নের আচার-আচরণ, খাদ্যাভ্যাস, ভাষা, সংস্কৃতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।